আজ ২১শে শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৫ই আগস্ট ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলায় যৌতুক এর জন্য পরিবার সহ মেয়ে কে যখম।


চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলায় যৌতুক এর জন্য মেয়ের পরিবার সহ মেয়েকে লোহার অস্ত্র দিয়ে মেরে যখম করেছে দুর্বিত্তরা। এ নিয়ে শিবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্য বরাবর একটি ইজারা করা হয়।

এ নিয়ে মেয়ের বাবা এবং পরিবার জানান, দীর্ঘ কিছুদিন যাবৎ মেয়ের শ্বশুর বাড়ির লোকজন মেয়েকে নির্মম ভাবে প্রতিনিয়ত যৌতুক এর জন্য পেটাতে থাকে এবং মাঝে মাঝে মেরে ফেলার ও হুমকি দেই ।

এ নিয়ে মো. বিশু আলী(৫২) শিবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্য বরাবর একটি ইজারাতে উল্লেখ্য করে বলেন, পরিবারের কলোহর যের ধরিয়া ইং ৪/৬/২০২০ অনুমানিক দুপুর ১২:৩০ ঘটিকার সময় আমার মেয়ে মোসাঃ সাবেরা বেগম (২৪) দাইপুথুরিয়া, আড়গাড়া হাট, শিবগঞ্জ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ কে মোঃ সাবদুল (৬৮), মোঃ আবদুল(৫৫), উভয়ের পিতা মৃত ইদ্রিশ আলী, মোঃ আশাদুল ইসলাম(২৫) পিতাঃ মো. তাফজুল ইসলাম, মোঃ মতিউর রহমান (৩৫) পিতাঃ আশকর আলী, মোসাঃ সুমেরা বেগম(৩৬) স্বামী মো. তাফজুল ইসলাম সাং দাইপুকুর,আড়গাড়াহাট, শিবগঞ্জ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সহনজাত নাম ৫/৬ জন ব্যাক্তি একই উদ্দেশ্য লক্ষ করে সবার হাতে দেশীয় ধারালো অস্ত্র-সস্ত্র সহ বেআইনি জনতায় দলবদ্ধ হইয়া আমার নিজস্ব বাসায় জোর পূর্বক প্রবেশ করার পর সকল আসামী আম্র মেয়ের পরিবার বর্গ কে উদ্দেশ্য করে অশ্লিন ভাষায় গালীগালাজ করতে থাকে। সেটার কারন মোসাঃ সায়েরা বেগম (২৪) জানিতে চাইলে আসামীরা কোনো উত্তর না দিয়ে সাবদুল(৬৮) এর হাতে থাকা লোহার রড দ্বারা এলপাতারি নির্মম ভাবে পেটাইয়া রক্তাক্ত করে ফেলে। মোসাঃ সায়েরা বেগম(২৪) রক্তাক্ত অবস্থায় যন্ত্রনায় নিচে পড়ে কাঁদতে থাকলে অন্যান্য দুর্বিত্ত দের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র দারা পেটাতে থাকে।

এ নিয়ে মোসাঃ সায়েরা বেগম(২৪) জানান, আমি রক্তাক্ত অবস্থায় মেঝে তে পরে থাকলে তারা আমাকে হত্যা করে ফেলার উদ্দেশ্য করে মাথা লক্ষ করে আঘাত করতে গেলে আমার বাপ হাত দ্বারা সেটা এড়ানোর চেষ্ঠা করি এর ফলে আমার বাবা হতের কবজির উপর ভেঙ্গে যায় এবং রক্তাক্ত ভাবে যখম করে। আমি আমার প্রান রক্ষার জন্য চিৎকার করলে বুবাদী সুমেরা আমার বুকের উপর চড়ার পর ২ হাত দিয়ে আমার শ্বাস রোধ করে গলা টিপে হত্যা করার চেষ্ঠা করে। আমার আত্ন চিৎকার এ আশেপাশের মানুষ এগিয়ে আসলে আসামী রা সকলে পালিে যায়, এবং বলে যায় এ বিষয় নিয়ে কোন থানা, পুলিশ, কেস, বা সাংবাদিকদের জানালে, মোসাঃ সায়েরা বেগম(২৪) সহ তার পরিবার বর্গ কে প্রানে হত্যা করা হবে। এ ঘটনার প্রমাণ এবং সাক্ষি দেওয়ায়ার জন্য সদ্য ৩ জন সাক্ষি রয়েছেন।

সর্বশেষ বিভিন্ন তথ্যসুত্রে জানাযায়, শিবগঞ্জ থানা থেকে আসামী দের গ্রেফতার করলেও রাতের আধারে আসামীদের কে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এলাকাবাসী এ ঘটনার তিব্র নিন্দা জানান, এবং বলেন এ ঘটনার প্রাপ্ত বিচার চাই ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর