আজ ২১শে শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৫ই আগস্ট ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

মানিকগঞ্জে ক্যাবল ব্যবসায়ীদের নামে মিথ্যা অভিযোগ ও অপপ্রচার।



মানিকগঞ্জে কয়েকজন ক্যাবল ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেছে আরেক ক্যাবল ব্যবসায়ী সৈয়দ আহমেদ তাওহীদ নোয়াব।

ঘটনার সূত্রপাতে জানা যায়,২০০৫ সালের দিকে দশজন শেয়ার হোল্ডার মিলে গড়পাড়া স্যাটেলাইট নামে ডিসের ব্যবসা শুরু করে । এর তদারকির দায়িত্ব দেওয়া হয় শেয়ার হোল্ডার সৈয়দ আহমেদ তাওহীদ নোয়াবকে। ২০১৫ সাল পর্যন্ত তিনি তদারকির দায়িত্ব পালন করেন। তবে দীর্ঘদিন ধরেই তার বিরুদ্ধে ভোক্তাদের অসন্তুষ্টি,অব্যবস্থাপনা,দূর্নীতি,সেচ্ছাচারিতা সহ নানা অভিযোগ উঠে আসছিল। তাই সকল শেয়ার হোল্ডারদের সর্বসম্মতিক্রমে তাকে তদারকির দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

আরো জানা যায়,৩১ অক্টোবর,২০১৮ তারিখে তিনি তার শেয়ার ৯ লক্ষ দশ হাজার টাকায় অন্য আরেকজনের কাছে বিক্রী করে দেয়। কিন্তু শেয়ার বিক্রী করার পরও তিনি পূর্বের আক্রশ বশত প্রতিষ্ঠানটি নষ্ট করার লক্ষে গড়পাড়া ও তার প্বার্শবর্তী এলাকায় ডিস লাইন সংযোগের চেষ্টা শুরু করে। এবং প্রতিষ্ঠানটি নষ্ট করতে তিনি প্রতিষ্ঠান এবং এর শেয়ার হোল্ডারদের নামে নানা অপপ্রচার করছে।

এমনকি গত রবিবার তিনি জেলা প্রশাসকের কাছে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার হোল্ডারদের নামে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করে। জেলা প্রশাসক অভিযোগটি পুলিশ সুপরের কাছে পাঠান। পুলিশ সুপার বিষয়টি তদন্তের জন্য সদর থানার ওসিকে বিষয়টি তদন্ত করার নির্দেশ দেন।

এবিষয়ে গড়পাড়া স্যাটেলাইট এর শেয়ার হোল্ডার মহাব্বত খান বলেন,সৈয়দ আহমেদ তাওহীদ নোয়াব পূর্বের আক্রশবশত আমাদের প্রতিষ্ঠানটি নষ্ট করার নির্মিত্তে আমাদের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। সে গড়াপড়া স্যাটেলাইটের তার শেয়ার বিক্রী করার পরও নিয়ম বহির্ভূতভাবে ইন্টারনেট ও ডিসের সংযোগ দিচ্ছে। এমনকি সে আমাদের ব্যবসা নষ্টের জন্য ডিস নিলে ইন্টারনেট ফ্রি ও ইন্টারনেট নিলে ডিস ফ্রি এভাবে সংযোগ দিচ্ছে,যা আইনত দন্ডনীয়। এমনকি সে আমাদের ভাব মূর্তি নষ্টের জন্য আমাদের নামে মিথ্যা ও বানোয়াট অভিযোগ দায়ের করেছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

এবিষয়ে মানিকগঞ্জের এম পি স্যাটেলাইটের স্বত্তাধিকারী আবুল বাশার বলেন,কারো সেচ্ছাচারিতা ও অপকর্মের দায় কোম্পানি নিবে না। আমরা তার সেচ্ছাচারিতাকে সমর্থন করি না।

জানা যায় যে,সৈয়দ আহমেদ তাওহীদ নোয়াব ছাত্রদল ও যুবদলের ক্যাডারদের দিয়ে এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে। তাদের মধ্যে একজন ছাত্রদলের সাবেক ক্যাডার ও বর্তমান যুবদল নেতা কাজী রুকায়েত হোসেন সাব্বির।

যুবদল নেতা সাব্বিরের সাথে নোয়াব

সৈয়দ আহমেদ তাওহীদ নোয়াবের বিরুদ্ধে সাটুরিয়া,উকিয়ারা,কৃষ্ণপুর সহ নানা জায়গায় সন্ত্রাসীদের দিয়ে দখলপূর্বক ক্যাবল স্থাপনের অভিযোগ রয়েছে। তার ক্যাডার সন্ত্রাসীদের ভয়ে তার বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করতে পারে না। তবে তার অপকর্মে অতিষ্ট হয়ে তার বিরুদ্ধে সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করে উকিয়ারার এম এ শাহিন ছানাউল্লাহ।

নোয়াবের বিরুদ্ধে ছানাউল্লাহর অভিযোগের কপি

এমনকি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে সে এলাকায় প্রভাব বিস্তার করতে গিয়ে তার সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা মানিকগঞ্জ জেলা শ্রমিক লীগের প্রচার সম্পাদল ইমদাদুল খান লিটন ও যুবলীগ নেতা মজলিশকে গুরুতর ভাবে আহত করে। তার হামলায় লিটন ও মজলিশ দীর্ঘদিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে। এবং এই হত্যাচেষ্টা মামলা এখন চলমান আছে।

এবিষয়ে মানিকগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হানিফ সরকার জানান,বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর